CESC শুনলেই ছোটবেলার লেক গার্ডেন্স-এর গ্রাউন্ড ফ্লোর ফ্ল্যাটটা মনে পড়ে। তখন কলকাতার পাওয়ার সাপ্লাই এতো উন্নত ছিল না। গরমকালের সন্ধ্যে মানে প্রায়েই লোডশেডিং। স্কুল থেকে ফিরে পড়তে বসার সময় লোডশেডিং হলে খুব আনন্দ হতো। খুব জরুরী হোমওয়ার্ক না থাকলে পড়া থেকে ছুটি! মনে মনে ভাবতাম অন্তত ৮টা অবধি পাওয়ার অফ থাকলে একেবারেই বইপত্র তুলে দেওয়া যাবে। বারান্দায় বসে ঠাম্মা আর ভাইয়ের সঙ্গে আড্ডা, ভাইয়ের সঙ্গে লুকোচুরি খেলা, এইভাবেই সময়টা কেটে যেতো। মনে পড়ে বাবা বারবার CESC-কে ফোন করছেন, তারা এসে বাড়ির সামনে পোল-এ কাজ করছে, আর আমরা দুই ভাই গরম ভুলে, অসুবিধে ভুলে, পড়াশোনা না করার ছুতো পেয়ে, লোডশেডিং উপভোগ করছি। আজ CESC অনেক উন্নত। কিন্তু সেই দিনগুলোও মন্দ ছিল না।